কলকাতার চিঠি

কলকাতার চিঠি

বাস, মিনিবাসে সবেতেই খেয়াল খুশি মত ভাড়া? রিপোর্ট চাইল হাইকোর্ট

রাজ্যে মিনিবাস ও বেসরকারি বাসে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হচ্ছে কি না তা নিয়ে হলফনামা চাইল কলকাতা হাই কোর্ট। গত মঙ্গলবার অর্থাৎ ২২শে ফেব্রুয়ারি, প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ, পরিবহণ দফতরের সচিবকে হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে যে নির্দিষ্ট কোনও তালিকা মেনে না কি, খেয়ালখুশি মতন ভাড়া নেওয়া হচ্ছে যাত্রীদের কাছ থেকে তা জানাতে হবে আদালতে।

কোভিডের পর থেকে রাজ্যের বেসরকারি বাসগুলির জন্য কোনও ভাড়া নির্দিষ্ট করা নেই বললেই চলে। ফলে যাত্রীদের নাজেহাল অবস্থা। এই অবস্থায় কলকাতা হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ চেয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়।

কোনও কোনও রুটে যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। এমনকি ২০১৮ সালের পরিবহণ আইন মানা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ। এমনই একাধিত সব অভিযোগ তুলে জনস্বার্থ মামলাটি দায়ের করেন আইনজীবী প্রতুষ পাটোয়ারি।

একে তো টানা কোভিড অতিমারির জেরে জনগণের পকেটে টান, তার উপর খেয়ালখুশি মতো ভাড়া আদায় করা হচ্ছে যাত্রীদের কাছ থেকে। আদালতে আবেদন রাখা হয়, ভাড়া নিয়ে নিজেদের পরিকল্পনা জানাতে হবে পরিবহণ দফতরকে। বাসে কোনও ভাড়ার তালিকা না থাকায় হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে যাত্রীদের।

তবে এই জনস্বার্থ মামলাটি খারিজের আবেদন জানানো হয় রাজ্যের পক্ষ থেকে। তাদের যুক্তি, কোনও বাসের রুট, সময়সূচি এবং ভাড়া সবটাই ঠিক করে পরিবহণের আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষ। পরিবহণ দফতর এই বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে না। অথচ এই মামলায় ওই কর্তৃপক্ষকেই যুক্ত করা হয়নি। তাই মামলাটি বাতিল করা হোক।

এর পরই প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ, পরিবহণ সচিবের কী ক্ষমতা রয়েছে বাস ভাড়া প্রশ্নে, ভাড়া নিয়ে কোনও নিয়ম রয়েছে কি না, তা চার সপ্তাহের মধ্যে রিপোর্ট দিয়ে জানাতে হবে পরিবহণ দফতরকে। তাই না হলে এই বিষয়ে আদালত হস্তক্ষেপ করবে।

প্রতীকী ছবি- সংগৃহীত

#RVApastoralcare

#RadioVeritasAsia

#BRBC

#Banideepti

#teresarozario

#Bus Fare#Calcutta High Court#কলকাতা#Kolkata #কলকাতারচিঠি#Kolkata news#

 

 

Add new comment

1 + 3 =