‘মহাত্মা গান্ধী শান্তি  পুরষ্কার-২০২২’ পেলেন সিস্টার রীনা ম্যাগডালিন ক্রুশ

সিস্টার রীনা ম্যাগডালিন ক্রুশ

শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ‘মহাত্মা গান্ধী শান্তি  পুরষ্কার-২০২২’ পেলেন সিস্টার রীনা ম্যাগডালিন ক্রুশ। 

সাউথ এশিয়া সোশ্যাল কালচারাল ফোরাম এবং সি.পি.ডি.আর (হিউম্যান রাইটস) এর যৌথ আয়োজনে কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত থেকে সিস্টার রীনা ম্যাগডালিন ক্রুশকে এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

সিস্টার রীনা ম্যাগডালিন ক্রুশ তিনি নাগরী ধর্মপল্লীর ভুরলিয়া গ্রামের সন্তান । ৪৩ বছর যাবৎ তিনি ব্রতীয় জীবনে সমাজের জন্য বিভিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।   তিনি দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষকতা পেশার সাথে যুক্ত আছেন।  সিস্টার রীনা ম্যাগডালিন ক্রুশ প্রায় ২৬ বছর যাবৎ কুমুদিনী নার্সিং ইনস্টিটিউট এ বিভিন্ন দ্বায়িত্ব পালন করার পাশাপাশি বর্তমানে তিনি প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের দ্বায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি ব্রতীয় জীবনে থেকে নিজের জ্ঞান এবং অধ্যবসায় দিয়ে প্রতিনিয়তই সমাজের ও দেশের সেবা দিয়ে, আরও অনেকের জীবন উজ্জ্বল ও আলোকিত করে তুলতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন।

সিস্টার তার অনুভুতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, এই অর্জন আমি মনে করি আমাদের খ্রিস্টান নারী সমাজের জন্য খুব গুরুত্ব বহন করবে। বিশেষ করে নারী জাগরণ ও নারী শিক্ষায় সমাজের মানুষকে আরও উৎসাহ প্রদান করতে এই প্রাপ্তি। নারীদের আরো শক্তি ও সাহস যোগাবে সমাজের বিভিন্ন সেক্টরে কাজ করে সমাজ উন্নয়নের অংশ নেবার জন্য। 

১৯৩৮ সালে শহিদ দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের অন্তর্ভূক্ত কুমুদিনী পোস্ট গ্রেজুয়েট নার্সিং ইন্সটিটিউট ।

উল্লেখ্য, ১৯৯৫ খ্রিস্টাব্দে মহাত্মা গান্ধীর ১২৫তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে গান্ধীজির মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ভারত সরকার এই পুরস্কার চালু করে।

অহিংসা ও অন্যান্য গান্ধীবাদী পদ্ধতিতে আর্থ-সামাজিক বা রাজনৈতিক পরিবর্তন সাধনের ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের প্রতি এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

 

সংবাদ :  রিপন আব্রাহাম টলেন্টিনু

Add new comment

4 + 2 =