‘এশিয়া শেল্টার ফোরাম’ বার্ষিক সম্মেলন ২০২২ । প্রতিপাদ্য বিষয় “স্থায়িত্বশীল আশ্রয় ও বসতি”

২৮ নভেম্বর ২০২২ খ্রিস্টব্দ তারিখে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ (ডিডিএম) অধীনে ‘এশিয়া শেল্টার ফোরাম’ বার্ষিক সম্মেলন ২০২২ আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠিত হচ্ছে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁ হোটেলে । এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হলো “স্থায়িত্বশীল আশ্রয় ও বসতি”।

এশিয়ায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্রমবর্ধমান তীব্রতা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের উপর বেশি প্রভাব ফেলছে, ২৮-৩০ নভেম্বর ২০২২ অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে এশিয়াসহ বিশ্বের ১৫টিরও বেশি দেশ থেকে ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায় থেকে ৩৫০ জনেরও বেশি অংশগ্রহণকারী একত্রিত হয়েছেন।

এশিয়া শেল্টার ফোরাম এর লক্ষ্য সরকার, দাতা, উন্নয়ন অংশীদার, শেল্টার ক্লাস্টার মেকানিজম এবং মানবিক সংস্থা এবং অংশীদারদের একত্রিত করে এই অঞ্চলের দেশগুলির মধ্যে আশ্রয় সম্পর্কিত সমন্বয়, সহযোগিতা, শিক্ষা সহভাগিতা করা এবং সর্বোত্তম অভিজ্ঞতাগুলির প্রসার ঘটানো।

এএসএফ সম্মেলনের প্রথম দিনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ড. মোঃ এনামুর রহমান এমপি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন, তিনি এএসএফের তাৎপর্য তুলে ধরে বলেন “এশিয়া শেল্টার ফোরাম হতে পারে একটি অত্যন্ত কার্যকরী ফোরাম যার মাধ্যমে আঞ্চলিক শিক্ষা ও অভিজ্ঞতা সহভাগিতা করে দুর্যোগপ্রবণ দেশগুলোর ঝুঁকি এবং প্রভাব কমানো সম্ভব। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে এই ফোরামকে আরো শক্তিশালী করা দরকার।”

এই উদ্বোধনী বক্তব্যের পর বাংলাদেশ এবং এশিয়া থেকে আশ্রয় ও বসতি সংক্রান্ত সমস্যা এবং তা সমাধানের জন্য সর্বাপেক্ষা উপযোগী অনুশীলন, শিক্ষা এবং চ্যালেঞ্জগুলির উপর আলোকপাত করে প্রযুক্তিগত সেশনগুলি পরিচালিত হয়। সম্মেলনে বাংলাদেশসহ এশিয়ার অন্যান্য দেশের আশ্রয় ও বসতিকে শক্তিশালী করার জন্য লব্ধ জ্ঞান ও এগিয়ে যাবার সম্ভাবনাগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়।

কারিতাস বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট বিশপ জেমস্ রমেন বৈরাগী তার বক্তব্যে বলেন, সংকটের সময় আশ্রয় দেওয়া সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং এবং জটিল কাজ। আশ্রয় কেন্দ্র শুধুমাত্র দুর্যোগ দ্বারা ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য একটি আশ্রয় নয় বরং এটি সুরক্ষিত করার এবং অনিশ্চয়তার মাঝে বেঁচে থাকার জায়গা। এটি একটি নতুন জীবন, সম্প্রদায়, পুনর্গঠন এবং পুনর্নির্মাণের মূল।

কারিতাস বাংলাদেশের  নির্বাহী পরিচালক মি: সেবাষ্টিয়ান রোজারিও বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় কারিতাস বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে ১৯৭০ সাল থেকে।

তিনি উল্লেখ করেন যে কারিতাস বাংলাদেশ মোট ১১১টি দুর্যোগের ঘটনা মোকাবেলা করেছে । ২৫৫টি সাইক্লোন শেল্টার, ৭৪টি বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে, এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে ৮১৮,৫১৯ টি স্বল্পমূল্যের বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে কারিতাস বাংলাদেশের মাধ্যমে

দ্বিতীয় দিন প্রেজেন্টেশন, দলীয় আলোচনা, কেস স্টাডি এবং মুক্ত আলোচনার মাধ্যমে আশ্রয় ও বসতির অনুশীলনগুলি থেকে শিক্ষা নেয়া ও প্রযুক্তিগত সেশন অনুষ্ঠিত হবে। দুই দিন সম্মেলনের পর ৩০ নভেম্বর অংশগ্রহনকারীদের জন্য একটি মাঠ পরিদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে যেখানে তারা বাংলাদেশ সরকারের আশ্রয়ণ প্রকল্প দেখার সুযোগ পাবে, যে প্রকল্পের মাধ্যমে ভূমিহীন প্রাকৃতিক দুর্যোগ আক্রান্ত পরিবারগুলোর পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এশিয়া শেল্টার ফোরাম হল একটি আঞ্চলিক ফোরাম, যেটি ২০১৫ সালে ব্যাংককে আশ্রয় সহায়তা অনুশীলনকারীদের নিয়ে শুরু হয়েছিল। ২০২১ সালের নভেম্বরে নেপালে অনুষ্ঠিত বার্ষিক এএসএফ সম্মেলনে, নেপাল সরকার বাংলাদেশে এশিয়া শেল্টার ফোরাম ২০২২-এর বার্ষিক সম্মেলন আয়োজন করার জন্য বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরকে সভাপতিত্ব হস্তান্তর করে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরোও বক্তব্য রাখেন মো: কামরুল হাসান, এনডিসি, সচিব, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, জনাব মো: আতিকুল হক, মহাপরিচালক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর, সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ও বিদেশের বিভিন্ন শেল্টার সেক্টরের প্রতিনিধি এবং মিডিয়া কর্মীগণ।

 

সংবাদ : রিপন টলেন্টিনু

Add new comment

5 + 0 =