সাবধান – ভুয়ো সাইট খুলে চাকরির টোপ

সরকারি দপ্তরে চাকরি! সেটাই বেকার যুবক-যুবতীদের পাখির চোখ। সেই সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে একাধিক প্রতারণা চক্র। বিভিন্ন দপ্তরের অফিসিয়াল সাইটকে নকল করে চলছে লোক ঠকানো। প্রায় অভিন্ন ‘ইউআরএল’ তৈরি করছে অসাধু চক্র। ফাঁদ পেতে চাকরিপ্রার্থীদের টাকা হাতানোর একাধিক অভিযোগ ইতিমধ্যেই জমা পড়েছে রাজ্যের বিভিন্ন থানা ও সাইবার থানাগুলিতে। প্রতারণা চক্রের পাতা এহেন ফাঁদ কী ভাবে এড়ানো যাবে, সে সম্পর্কে সচেতন করতে প্রচারও শুরু করেছে রাজ্য পুলিস।   

সূত্রের খবর, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরই গজিয়ে ওঠে এই প্রতারণা চক্রগুলি। রাজ্য পুলিসের ডেপুটি সুপার পদমর্যাদার আধিকারিক বিদিত মণ্ডল জানিয়েছেন, স্থানীয় এলাকাতেও এই প্রতারণা চক্রগুলির চর রয়েছে। সেই এলাকায় কোন কোন বাড়িতে বেকার যুবক-যুবতী রয়েছেন, তাঁদের মধ্যে কতজন সরকারি চাকরিতে ইচ্ছুক বা পরীক্ষা দিয়েছেন, সেই খবর ‘ট্র্যাক’ করে প্রতারণা চক্রগুলি। সেইমতো চাকরিপ্রার্থী ও তার পরিবারের সঙ্গে নানা অছিলায় যোগাযোগ করে সেই চর। রাজ্য পুলিস সূত্রে খবর, প্রার্থীকে টাকার বিনিময়ে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেয় প্রতারকরা। তবে সেই প্রক্রিয়ায় ‘সততা’ ষোলআনা। হাতে আসা একাধিক অভিযোগ ঘেঁটে পুলিস দেখেছে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই চাকরি প্রার্থী প্রথম মাসের বেতন পাওয়ার পরই তাদের ‘কমিশন’ মেটাতে হবে, এমন ‘মনোগ্রাহী’ শর্ত পরিবারগুলিকে দেয় প্রতারকরা। সংশ্লিষ্ট পরিবারের বিশ্বাস অর্জনের মোক্ষম দাওয়াই!

প্রতারকদের পাতা ফাঁদে পা দিলেই আসল ‘খেলা’ শুরু। পুলিসের কাছ থেকে জানা গেছে, সংশ্লিষ্ট বিভাগের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের আগেই ওই চক্র তৈরি করে একটি নতুন সাইট, প্রায় অবিকল। ‘ইউআরএল’ কিছুটা ভিন্ন তবে তা যে ভুয়ো, তা সাধারণ চোখে দেখে বোঝার উপায় নেই। রাজ্য পুলিসের ফেসবুক পেজে একটি সচেতনতা বার্তায় উদাহরণস্বরূপ, রাজ্যের গ্রুপ-ডি পদে চাকরির ক্ষেত্রেও এই অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। এই দপ্তরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের নাম www.wbgdrb.in। তবে তদন্তে দেখা গিয়েছে, ফলাফল প্রকাশের আগে প্রতারকদের তৈরি ওয়েবসাইটটির নাম www.wbgdrbresult.in। পুলিস জানিয়েছে এই সাইটটির কোনও বৈধতা নেই। এখানে পরীক্ষায় পাশ করা চাকরিপ্রার্থীদের একটি ভুয়ো তালিকা প্রকাশ করা হয়। প্রতারকদের ফাঁদে পা দেওয়া পরীক্ষার্থী আদতে ফেল করলেও ভুয়ো সাইটে তাঁকে ‘পাশ’ দেখানো হবে। নকল ফলাফল প্রকাশের পরই চাকরিপ্রার্থীরা নিজেদের চারে তাদের সঙ্গে কথা বললেই নানান অছিলায় টাকা দাবি করতে থাকে প্রতারকরা। মোটা টাকা আদায় হয়ে গেলেই যাবতীয় সদ্ভাব উধাও। 

পুলিস দপ্তর জানিয়েছে, ভারতীয় রেলের চাকরি পাইয়ে দেওয়ার চক্রও বিদ্যমান। এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য শিক্ষাদপ্তরের একাধিক বিভাগে এধরনের অভিযোগ মিলেছে। প্রসঙ্গত এই দপ্তরের চাকরির পরীক্ষার ক্ষেত্রেই ভুয়ো সাইট খুলতে বেশি আগ্রহী প্রতারণা চক্রগুলি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অভিযুক্তদের পাকড়াও করতে সক্ষম হয়েছেন তদন্তকারীরা। পুলিসের সচেতনতা বার্তায় দেখা গিয়েছে, www.wbbpe.org হল ওয়েস্ট বেঙ্গল বোর্ড অব প্রাইমারি এডুকেশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট। সেটিকে নকল করে প্রতারকরা তৈরি করেন www.wbbperesult.org। তার মাধ্যমে জালিয়াতি চালানোর অভিযোগ পায় তদন্তকারীরা। এই সমস্ত ভুয়ো সাইট থেকে সাবধান থাকতে অনুরোধ জানিয়েছে রাজ্য পুলিস। এছাড়াও পুলিসের তরফে জানানো হয়েছে, সাইবার প্রতারণা সংক্রান্ত সচেতন থাকতে প্রতি রবিবার ‘ওয়েস্ট বেঙ্গল পুলিস’-এর ফেসবুক পেজে নজর রাখুন রাজ্যবাসী। প্রতিবেদন – অতনু দাস।

 

Website: https://bengali.rvasia.org

YouTube: http://youtube.com/veritasbangla

Download Radio Veritas Asia Mobile App on:

Google Play: https://bit.ly/GooglePlayRVAmobileAPP

App Store: https://bit.ly/AppStoreRVAmobileAPP

Add new comment

10 + 9 =