সম্প্রীতি বাংলাদেশে শান্তির জন্য আন্তঃধর্মীয় শীর্ষ সম্মেলন করেছে এশিয়া ফাউন্ডেশন

সম্প্রীতি বাংলাদেশে শান্তির জন্য আন্তঃধর্মীয় শীর্ষ সম্মেলন করেছে এশিয়া ফাউন্ডেশন

 

বিগত ২৩  জানুয়ারী বাংলাদেশে এশিয়া ফাউন্ডেশন আয়োজিত ”ওয়েস্টিন ইন্টারন্যাশনাল হোটেল, গুলশান ২,"সম্প্রীতি ও শান্তির জন্য" একটি আন্তর্জাতিক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়া ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম, বিশেষ করে "আন্তঃধর্মীয় সংলাপ" এর উপর দেশের বিভিন্ন ধর্মীয় নেতাদের  মতামত ব্যক্ত করাই ছিল এই অনুষ্ঠানের মূল উদ্দেশ্য ছিল । আলোচনার বিষয়গুলোর মধ্যে  ছিল , শান্তি প্রকল্প থেকে শুরু করে উগ্রবাদ দমন এবংনারীরক্ষমতায়ন বৃদ্ধি করা।

বাংলাদেশেরঅংশগ্রহণকারীদের পাশাপাশি, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রায় ৫০  জন শান্তিপ্রবক্তা এই বছরের শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন।

রাজশাহী সংলাপ  কমিশনের আহ্বায়ক ও সচিব ফাদার প্যাট্রিক গমেজ  বলেন, এশিয়া ফাউন্ডেশনের মানবাধিকার প্রকল্প এবং আন্তঃধর্মীয় কার্যক্রম আদিবাসী ও আদিবাসী সম্প্রদায়সহ তৃণমূলে অনুপ্রবেশ করতে সক্ষম হয়েছে।

ফাদার তার বক্তব্যে আরও বলেন যে"আন্তঃধর্মীয় কথোপকথন" বিশেষ করে ধর্মীয় উৎসবগুলি যেমন ঈদ এবং বড়দিন হল পারস্পারিক সংলাপ বৃদ্ধি করার একটিবিশেষ সময় ফাদার প্যাট্রিক গমেজ এশিয়া ফাউন্ডেশন সামিট গ্রুপের অংশগ্রহণকারীদের সাথে সংযুক্ত আছেন ।কিছু অংশগ্রহণকারী অবশ্য অভিমত ব্যক্ত করেছেন যে একটি মুসলিম প্রধান দেশে আন্তঃধর্মীয় সম্প্রীতি বাস্তবায়ন করা এত সহজ নয়।

রাজশাহীর একজন হিন্দু অংশগ্রহণকারী, কল্পনা ভৌমিক, এশিয়া ফাউন্ডেশনের আর্লি রেসপন্স ইউনিট প্রকল্পের প্রশংসা করেছেন কারণ এটি সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর ধর্মীয় অধিকার এবং স্বাধীনতা রক্ষা করে।

প্রকল্পের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার স্নিগ্ধা জামান বলেন, এশিয়া ফাউন্ডেশন মানবাধিকার সুরক্ষা, মর্যাদা এবং "বাংলাদেশে আন্তঃধর্মীয় সম্প্রীতি ও শান্তি" সম্পর্কে সাফল্যের গল্পে আগ্রহী।এশিয়া ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের সরকার, সুশীল সমাজ, সম্প্রদায় এবং ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ এবং বেসরকারী খাতের সাথে কাজ করে এমন নেতাদের সক্ষম করার জন্য সম্প্রদায়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে যা দেশের বৈচিত্র্যকে প্রতিফলিত করে এবং উন্নয়নে ব্যাপক ভিত্তিক অংশগ্রহণকে সহজতর করতে পারে। -

সংবাদ : সিস্টার লাইলী রোজারীও আরএনডিএম

 

Add new comment

1 + 5 =