ইন্দোনেশিয়ার ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে মাদাগাস্কারের খ্রিস্টান ছাত্রী স্নাতক অর্জন

মাদাগাস্কার, পূর্ব আফ্রিকার একজন খ্রিস্টান ছাত্রী ইন্দোনেশিয়ার সায়ারিফ হিদায়াতুল্লাহ স্টেট ইসলামিক ইউনিভার্সিটি (ইউআইএন) জাকার্তা থেকে সামাজিক ও রাজনৈতিক বিজ্ঞান অনুষদের সেরা ব্যাচেলর সহ স্নাতক হয়েছেন।

 

অন্যান্য ১,০৪১ জন শিক্ষার্থীর সাথে, রাহাসিমামঞ্জি লোভানাভালোনা অ্যালিসন ক্যান্ডি একমাত্র অমুসলিম স্নাতক যিনি (ইউআইএন) জাকার্তায় তার পড়াশোনা শেষ করেছেন।

 

তিনি ৫ মে,১৯৯৮ খ্রীষ্টাব্দে মাদাগাস্কারের বেটাফোতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। মাদাগাস্কা হল ভারত মহাসাগরের একটি দ্বীপ দেশ। ইন্দোনেশিয়ার পর এটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ যা প্রাথমিকভাবে দ্বীপ নিয়ে গঠিত।

 

 ইউআইএন সায়ারিফ হিদায়াতুল্লাহ জাকার্তা হল ইন্দোনেশিয়ার স্টেট ইসলামিক রিলিজিয়াস কলেজ এর মধ্যে একটি। এদিকে, ক্যান্ডি মাদাগাস্কারের একজন খ্রিস্টান ছাত্রী যিনি ইন্দোনেশিয়ান সরকারের কাছ থেকে বৃত্তি পান।

 

মাদাগাস্কার থেকে এসে, তিনি( ইউআইএন)  জাকার্তায় অধ্যয়ন করতে পেরে গর্বিত ছিলেন, যেখানে অধিকাংশ ছাত্র ছাত্রীই মুসলিম। যদিও সে একজন অমুসলিম, ক্যান্ডিকে  বিশ্ববিদ্যালয়ে কেউ  চায় না সেটা সে অনুভব করেনি।

 

ক্যান্ডিও স্বীকার করেছেন যে তিনি তার শেখার কার্যক্রমে ধর্মকে একটি বাধা বলে মনে করেন না। অন্যদিকে, তিনি যখন অধ্যয়ন করেছেন সেই ক্যাম্পাসে অন্যান্য মুসলিম ছাত্র ছাত্রীদের সাথে সম্পর্ক স্থাপন করতে  তিনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছেন।

 

"আমি এটিকে একটি চ্যালেঞ্জ হিসাবে বিবেচনা করি, যেখানে আমাকে ইসলাম এবং আরবি সম্পর্কে অনেক কিছু শিখতে হবে।

ক্যান্ডি বলেছিলেন যে স্কুলে তার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জটি আরবি শেখা ছিল কারণ তার ভাষা এখনও বিদেশী। তাছাড়া, দৈনন্দিন জীবনে, তাদের নিজ দেশের লোকেরা ফরাসি ভাষাকে জাতীয় ভাষা হিসাবে ব্যবহার করেন।

 

একজন বিদেশী ছাত্রী হিসাবে, ক্যান্ডি বক্তৃতার মাধ্যম হিসেবে ইন্দোনেশিয়ান ভাষা আয়ত্ত করার অভিজ্ঞতাও শেয়ার করেছেন। বাহাসা ইন্দোনেশিয়া শেখার জন্য, তিনি ভাষা উন্নয়ন কেন্দ্র (পিপিবি) ইউআইএন জাকার্তা দ্বারা আয়োজিত একটি কোর্সে যোগ দেন।

 

তিনি স্বতন্ত্র পরীক্ষা নির্বাচনের মাধ্যমে ( ইউআইএন)  জাকার্তায় প্রবেশিকা ভর্তিতে উত্তীর্ণ হন। তিনি ইন্দোনেশিয়া প্রজাতন্ত্রের শিক্ষা ও সংস্কৃতি মন্ত্রকের দরমাসিসওয়া প্রোগ্রাম থেকে বৃত্তি প্রাপ্ত ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে একজন।

 

ইন্দোনেশিয়ার ৫৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্দোনেশিয়ার ভাষা, শিল্পকলা এবং সংস্কৃতি অধ্যয়নের জন্য ইন্দোনেশিয়ার সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে এমন দেশগুলির সমস্ত বিদেশী শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি প্রোগ্রামটি দেওয়া হয়।

দারমাসিসওয়া ১৯৭৪ খ্রীষ্টাব্দে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ান নেশনস এর উদ্যোগের অংশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

 

সংবাদঃ রেডিও ভেরিতাস এশিয়া ইংলিশ ওয়েবসাইট থেকে।

 

অনুবাদঃ সিষ্টার মেরীয়ানা গমেজ আরএন ডিএম

 

 

Add new comment

7 + 5 =