৫ জুন, ২০২২ খ্রীষ্টাব্দে নাইজেরিয়ার ওন্ডো রাজ্যের একটি গির্জায় হামলার ভুক্তভোগীদের জন্য পোপ ফ্রান্সিস এর প্রার্থনা

সেন্ট পিটার্সবার্গের ক্যাথলিক চার্চে ক্যাথলিক সমাবেশ চলাকালীন বোমা হামলার শিকার ব্যক্তিরা। ওওতে সেন্ট লুই ক্যাথলিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ফ্রান্সিস জেভিয়ার [Reuters]

পুণ্য ভুমি রোম নগরীর প্রেস অফিসের জারি করা একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পবিত্র আত্মার পর্বটি  উদযাপনের সময় পোপ ফ্রান্সিস ৫ জুন, ২০২২খ্রীষ্টাব্দ  নাইজেরিয়ার ওন্ডো রাজ্যের সেন্ট ফ্রান্সিস ক্যাথলিক গির্জায় হামলার ভুক্তভোগীদের জন্য প্রার্থনা করেন।

দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে সাধারণত তুলনামূলকভাবে সহিংসতামুক্ত অঞ্চলে এই গণহত্যার ঘটনা ঘটে। বিবৃতিতে অনেক শিশু সহ অনেক বিশ্বস্ত লোকের মৃত্যুর কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

 পোপ ফ্রান্সিস নির্যাতিতদের জন্য এবং দেশের জন্য প্রার্থনা করেন এবং উদযাপনের একটি মুহুর্তে বেদনাদায়কভাবে তাদেরকে প্রভুর কাছে অর্পণ করেন যেন, পবিত্র আত্মা   তাদের সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য  তাদের উপর নেমে আসেন।

 সরকার ও পুলিশ জানিয়েছেন, বিস্ফোরক ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ভারী অস্ত্রধারীরা দক্ষিণ-পশ্চিম নাইজেরিয়ার ওন্ডো রাজ্যে একটি ক্যাথলিক গির্জায় হামলা চালায়। এএফপি জানিয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম নাইজেরিয়ান শহরে সেন্ট ফ্রান্সিস ক্যাথলিক চার্চে সকালের গণসমাবেশের সময় এই হামলার ঘটনা ঘটে, যা সাধারণত দেশের অন্যান্য অংশে সক্রিয় জিহাদি এবং অপরাধী চক্র থেকে রেহাই পায়, হামলার দায় স্বীকার করা হয়নি এবং মানুষের সংখ্যা এখনও জানা যায়নি, তবে নিহতের সংখ্যা অনেক।

রাষ্ট্রপতি মুহাম্মাদু বুহারি "উপাসকদের জঘন্য হত্যার" নিন্দা করেছেন।

ওন্ডো রাজ্যের গভর্নর ওলুওয়ারোটিমি আকেরেদোলু তার বিবৃতিতে বলেন এটি একটি "ঘৃণ্য ও শয়তানী হামলা"।  হামলাকারীদের খুঁজে বের করার জন্য নিরাপত্তা বাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছেন।

 নাইজেরিয়া এমন একটি দেশ যা বিভিন্ন ফ্রন্টে নিরাপত্তাহীনতায় জর্জরিত।

 উত্তর-পূর্বে ১২ বছর ধরে একটি জিহাদি বিদ্রোহ চলছে।

 অনুবাদ  সিষ্টার মেরীয়ানা গমেজ আরএনডিএম।

 

 

 

Add new comment

14 + 0 =