ভ্যাটিকানের কমিউনিকেশন অফিসে ভারতীয় পুরোহিতের নাম মনোনয়ন করলেন পোপ ফ্রান্সিস

খ্রিস্টীয় ধর্মীয় সংবাদ
ভ্যাটিকানের কমিউনিকেশন অফিসে ভারতীয় পুরোহিতের নাম মনোনয়ন করলেন পোপ ফ্রান্সিস

ফেডারেশন অফ এশিয়ান বিশপস কনফারেন্স (FABC)-অফিস অফ সোশ্যাল কমিউনিকেশন (OSC)-এর এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি ফাদার জর্জ প্লাথোটামকে ডিকাস্ট্রি ফর কমিউনিকেশনের নতুন পরামর্শদাতাদের একজন হিসাবে মনোনয়ন করা হল।

ভ্যাটিকান নিউজের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, পোপ ফ্রান্সিস, গত ২৯শে সেপ্টেম্বর, ডিকাস্টারি ফর কমিউনিকেশনের জন্য দুইজন নতুন সদস্য এবং ১০ জন নতুন পরামর্শক নিয়োগ করেছেন। নতুন পরামর্শদাতাদের মধ্যে এশিয়া মহাদেশ থেকে তিনিই একমাত্র প্রতিনিধি।
আরভিএ নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ফাদার প্লাথোটাম বলেন যে, ‘আমি আন্তরিকতা প্রকাশ করি এই নিযুক্তিকরণে। 

 
নতুন সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন পেরুজিয়া-সিট্টা ডেলা পিভ (ইতালি) এর আর্চবিশপ ইভান ম্যাফিস এবং ক্যাম্পো লিম্পো (ব্রাজিল) এর বিশপ ভালদির হোসে ডি কাস্ত্রো।
২০১৫ সালে, পোপ ফ্রান্সিস গণসংযোগের জন্য ডিকাস্ট্রি স্থাপন করেন যাতে সমস্ত রকম অ্যাপোস্টলিক ক্রিয়া কলাপ সংযুক্ত থাকে। এটির একটি তিন-স্তরীয় কাঠামো রয়েছে - সদস্য, উর্ধ্বতন সদস্য এবং পরামর্শদাতা।

বিগত ২০১৯ সাল থেকে ফাদার (ড.) প্লাথোটাম FABC-OSC-এর নেতৃত্ব করে চলেছেন, রেডিও ভেরিতাস এশিয়াও এর অন্তর্ভুক্ত। যা গত ৫২ বছর ধরে সমগ্র এশিয়ায় ২২টি ভাষায় সম্প্রচারিত একমাত্র মহাদেশীয় ক্যাথলিক রেডিও পরিষেবা।

তিনি একজন গণসংযোগ  প্রশিক্ষক, সাংবাদিক ও গণমাধ্যম বিশেষজ্ঞ।

তাঁর নেতৃত্বে, ২০১৯ সালে, FABC-OSC ফিলিপাইনের ম্যানিলায় ভেরিতাস এশিয়া ইনস্টিটিউট অফ সোশ্যাল কমিউনিকেশন (VAISCOM) প্রতিষ্ঠা করা হয়। ‘VAISCOM’ সামাজিক যোগাযোগে জন্য এশিয়ার যাজকদের গঠন করে। এটি যাজক কর্মীদের নেতৃত্ব এবং পরিচালনার দক্ষতা প্রদান করে এবং তাদের মন্ত্রণালয়কে উন্নত করার জন্য এশিয়ান যোগাযোগ পরিস্থিতির উপর গবেষণা করে।

প্লাথোটাম ফিলিপাইনের পলিটেকনিক ইউনিভার্সিটি, কলেজ অফ কমিউনিকেশনের স্নাতক এবং স্নাতক ছাত্রদের শিক্ষকতা করান এবং ভারতের আসামে অবস্থিত ডন বস্কো ইউনিভার্সিটির, কমিউনিকেশনের ডক্টরাল ছাত্রদের  তত্ত্বাবধান  করেন।

তিনি এর আগে ভারতের শিলংয়ের সেন্ট অ্যান্থনি কলেজে গণমাধ্যম বিভাগের পরিচালক এবং ইন্ডিয়ান ক্যাথলিক প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (ICPA) এবং দক্ষিণ এশিয়ান ক্যাথলিক প্রেস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এবং দক্ষিণ এশিয়ার ধর্মীয় সংবাদের সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি গুয়াহাটি ডন বস্কো সম্প্রদায়ের সদস্য। শিলংয়ের নর্থ ইস্টার্ন হিল ইউনিভার্সিটি থেকে ধর্মতত্ত্ব, সমাজবিজ্ঞান, সাংবাদিকতা এবং গণযোগাযোগে তিনটি স্নাতকোত্তর ডিগ্রি এবং গণযোগাযোগে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি।

চার দশক ধরে উত্তর-পূর্ব ভারতে যথাক্রমে গুয়াহাটি, শিলং এবং তুরায় কাজ করেন।

২০০৮ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত, তিনি      ক্যাথলিক বিশপস কনফারেন্সের যোগাযোগ মাধ্যমের  ভারতের জাতীয় সেক্রেটারি পদে নিযুক্ত ছিলেন এবং ২০১২  থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত তিনি ন্যাশনাল মিডিয়া ট্রেনিং অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট (NISCORT) এর পরিচালক ছিলেন।

এই পর্যন্ত তিনি মিডিয়া-সম্পর্কিত একাধিক একাডেমিক এবং পরামর্শমূলক বোর্ডে কাজ করেন।

তিনি ২৫ বছরের ঐতিহ্যবাহী BOSCOM India (Don Bosco Communications) এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং সেলসিয়ান নিউজ এজেন্সির প্রতিষ্ঠাতা। যেটি এখন বস্কো ইনফরমেশন সার্ভিস (BIS) নামে দক্ষিণ এশিয়ার সেলসিয়ান সম্প্রদায়ের অফিসিয়াল সংবাদ সংস্থা। 

১৯৯২ সালে, তিনি ইউনিয়ন অফ ক্যাথলিক ইন্টারন্যাশনাল প্রেসেস এবং জার্মান সরকারের কাছ থেকে উত্তর-দক্ষিণ বন্ধুত্ব পুরস্কার পান।

তিনি পূর্বে মেঘালয়ের ডন বস্কো তুরার রেক্টর এবং প্রিন্সিপাল, সিভিল সার্ভিসের প্রস্তুতিমূলক প্রশিক্ষণ এবং ক্যারিয়ার গাইডেন্স সেন্টার ডন বস্কো একাডেমী তুরার পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। - ভ্যাটিকান নিউজ এবং বস্কো তথ্য পরিষেবা থেকে সংগৃহীত।

মূল রচনা- রেডিও ভেরিতাস এশিয়া

অনুবাদ- তেরেসা রোজারিও 

#RVApastoralcare 
#RadioVeritasAsia 
#BRBC
#Banideepti 
#RVANews#Pope Francis
#George Plathottam
#teresarozario

Add new comment

3 + 1 =