করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ৯টি দেশের জন্য চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রেরণ করেন পোপ ফ্রান্সিস

পোপ ফ্রান্সিস, পন্টিফিকাল ফান্ডের দাতা কার্ডিনাল কনরাড ক্রেজিউস্কির  কার্যক্রমের  মাধ্যমে গত ২২ জুন ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ তারিখে করোনা মহামারীতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের সহায়তায় নয়টি দেশের জন্য চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রেরণ করেছিলেন।

 

এখনো অনেক দেশে করোনার ভয়াবহ অবস্থা বিরাজ করছে। প্রতিনিয়ত বাড়ছে আক্রান্তের ও মৃত্যুর সংখ্যা। উন্নত দেশে গুলো করোনার টিকা প্রদান করলে ও অনেক দেশে রয়েছে যাদের টিকা ও চিকিৎসা ব্যবস্থায় আধুনিক না হওয়ায় উন্নত দেশের গুলোর সহযোগিতা  প্রয়োজন।

 

এই কারণে, কার্ডিনাল কনরাড ক্রেজিউস্কির সমন্বিত পন্টিফিকাল লিবারেল অর্গানাইজেশন ৩৮ টি ভেন্টিলেটর কিনেছিল এবং ১৭ জুন তাদের অন্যান্য চিকিৎসা-স্বাস্থ্য সরবরাহ সহ কিছু দেশে পাঠিয়েছিল যাদের এখনও জীবনরক্ষামূলক সরঞ্জামের প্রয়োজন রয়েছে।

 

এখনও প্রায় ৫০ মিলিয়ন করোনায় আক্রান্তের  রেকর্ড হয়েছে ।  ব্রাজিল ৬, কলম্বিয়া ৫, আর্জেন্টিনা ৫, ভারত ৬, চিলি ৪, দক্ষিণ আফ্রিকা ৪, বলিভিয়া ৩, সিরিয়া ৩, এবং পাপুয়া নিউ গিনি ২টি করে  ভেন্টিলেটর ও জীবন রক্ষার সরঞ্জামগুলি এই সমস্ত দেশে আক্রান্ত রোগিদের চিকিৎসার  সুবিধার্থে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

মহামারী শুরুর পর থেকে বাংলাদেশ, মেক্সিকো, কলম্বিয়া, হন্ডুরাস, ইকুয়েডর, ক্যামেরুন, জিম্বাবুয়ে, ইউক্রেন ও ডমিনিকান রিপাবলিককেও ভেন্টিলেটর পাঠিয়েছিলেন পোপ।

 

বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের প্রচেষ্টা সত্ত্বেও মহামারীটি নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। । বর্তমানে, কোভিড -১৯-এর সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি ব্রাজিল এবং ভারত ।

অন্য দিকে বাংলাদেশেও সীমান্ত অঞ্চলগুলেতে ব্যাপক হারে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্য। দেশের বিভিন্ন স্থানে সরকার ঘোষিত লগ ডাউন দেওয়া হয়েছে।

 

Add new comment

9 + 5 =